ArabicBengaliEnglishHindi

টাকা খরচ, পরিচ্ছন্ন হয়নি ঢাকা


প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২২, ২:২৭ অপরাহ্ণ / ৩১
টাকা খরচ, পরিচ্ছন্ন হয়নি ঢাকা

রাজধানীকে পরিচ্ছন্ন রাখতে দুই সিটি করপোরেশন গত তিন বছরে ১ হাজার ৯২১ কোটি টাকা খরচ করেছে। এত টাকা খরচের পরও ঢাকা পরিচ্ছন্ন হয়নি

আর যা–ই হোক গুলশান, বনানী, বারিধারা, ধানমন্ডি বা উত্তরার কিছু এলাকার সড়ক পার হওয়ার সময় নাকে হাত বা রুমাল চেপে ধরতে হয় না। এসব এলাকায় রাস্তার পাশে ময়লা-আবর্জনাও সাধারণত পড়ে থাকতে দেখা যায় না।

ধুলাবালুর যন্ত্রণাও কম। এর ঠিক উল্টো চিত্র মালিবাগ, মেরাদিয়া বা কামরাঙ্গীরচরের নূরবাগে। এর মধ্যে মেরাদিয়া বাজারের পাশ দিয়ে গেলে উৎকট গন্ধ নাকে এসে লাগবেই। সেখানে রাস্তার পাশে ময়লা-আবর্জনা পড়ে থাকাই যেন স্বাভাবিক ঘটনা।

যদিও রাজধানীকে পরিচ্ছন্ন রাখতে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন গত তিন বছরে ১ হাজার ৯২১ কোটি টাকা খরচ করেছে। এত টাকা খরচের পরও রাজধানী ঢাকা পরিচ্ছন্ন হয়নি। দুই সিটির অনেক এলাকার সড়ক নোংরা, অপিরচ্ছন্ন থাকে। এ রকম পরিস্থিতি বছরের পর বছর চলে আসছে।

এ পরিস্থিতি পাল্টানোর দায়িত্ব ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের। স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) আইন অনুযায়ী, সিটি করপোরেশনের প্রধান কাজগুলের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে নিজ এলাকার সড়ক, ইমারত ও বিভিন্ন জায়গা থেকে বর্জ্য সংগ্রহ অপসারণ।

বর্জ্য অপসারণের ক্ষেত্রে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের কী অবস্থা, তা একটি ছোট্ট তথ্যেই পরিষ্কার হবে। ঢাকা উত্তর সিটিতে ওয়ার্ড রয়েছে ৫৪টি। আর অস্থায়ী বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্র বা এসটিএস রয়েছে ৩২টি ওয়ার্ডে। এর অর্থ হচ্ছে ২২টি ওয়ার্ডে বর্জ্য অপসারণ করার মতো ব্যবস্থা এখনো গড়ে ওঠেনি। অন্যদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে ওয়ার্ড রয়েছে ৭৫টি। এর মধ্যে ৫৬টি ওয়ার্ডে বর্জ্য স্থানান্তর (অস্থায়ী) কেন্দ্র রয়েছে। বাকি ১৯টি ওয়ার্ডের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বলতে আদতে কিছু নেই। এসবের ফল হচ্ছে বর্জ্য পড়ে থাকছে যত্রতত্র।

এমন পরিস্থিতির মধ্যেই গতকাল শনিবার পালিত হয়ে গেল ‘বিশ্ব পরিচ্ছন্নতা দিবস’। নিজের শহর পরিচ্ছন্ন রাখতে বিশ্বজুড়ে ২০১৮ সাল থেকে পালিত হচ্ছে এই দিবস। এ বছর ১৯১টি দেশে পরিচ্ছন্নতা দিবস পালন করা হয়েছে।

মূলত সরকার, সরকারি সংস্থা এবং নাগরিকদের যৌথ উদ্যোগের অংশ হিসেবে পরিচ্ছন্নতা দিবস পালনের ধারণাটি এসেছে। গতকাল এই দিবসকে কেন্দ্র করে ঢাকার দুই সিটি কর্তৃপক্ষের কোনো কর্মসূচি ছিল না। নাগরিক সংগঠন বা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলোর মধ্যে কেউ গতকাল সচেতনতামূলক কর্মসূচি পালন করেছে, এমন খবর পাওয়া যায়নি।

ঢাকার দুই সিটিতে পরিচ্ছন্নতার কাজে যুক্ত রয়েছেন ১০ হাজার ১৭৭ জন কর্মী। এর মধ্যে দক্ষিণ সিটিতে ৫ হাজার ৪১২ জন এবং উত্তর সিটিতে ৪ হাজার ৭৬৫ জন কাজ করছেন। এসব কর্মী মূলত রাস্তাঘাট ঝাড়ু দেওয়ার কাজ করেন। আর বাসাবাড়ি থেকে বর্জ্য সংগ্রহের পর তা এসটিএস বা অস্থায়ী বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্রে নিয়ে আসেন সিটি করপোরেশনের অনুমতি পাওয়া বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা।