টেকনাফের ইয়াবা কারবারীসহ ইঞ্জিন নৌকা জন্দ-বিজিবি


প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ১, ২০২৩, ১১:০০ পূর্বাহ্ণ / ৮৮
টেকনাফের ইয়াবা কারবারীসহ ইঞ্জিন নৌকা জন্দ-বিজিবি

মোহাম্মদ মাসুদ,বিশেষ প্রতিনিধিঃ টেকনাফের শাহপরীরদ্বীপে বিজিবি’র টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) অভিযানে ৮০,০০০ (আশি হাজার) পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ একজন মাদক কারবারী ০১টি ইঞ্জিন চালিত কাঠের নৌকাসহ আটক করা হয়েছে।

৩১ আগস্ট রাত সাড়ে ১১টায় নৌ টহলদল মায়ানমার হতে ৩ জন ব্যক্তিকে একটি ইঞ্জিন চালিত কাঠের নৌকাযোগে সীমান্তের শূন্য লাইন অতিক্রম করে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে কোস্টগার্ড নতুন ক্যাম্প সংলগ্ন বেড়ীবাঁধের দিকে আসতে দেখে চ্যালেঞ্জ করলে ২জন নৌকা হতে লাফিয়ে অন্ধকারের সুযোগে পালিয়ে যায় এবং অপর জনকে চারদিকে ঘেরাও করে আটক কর।

গোপন সংবাদে ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ শাহপরীরদ্বীপ বিওপি’র দায়িত্বপূর্ণ কোস্টগার্ড নতুন ক্যাম্প সংলগ্ন বেড়ীবাঁধ এলাকা দিয়ে মাদকদ্রব্যের একটি চালান মায়ানমার হতে বাংলাদেশে আসতে পারে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে শাহপরীরদ্বীপ বিওপির একটি চোরাচালান প্রতিরোধী টহলদল দু’টি ভাগে বিভক্ত হয়ে একটি টহলদল বেড়ীবাঁধের আঁড় নিয়ে কৌশলগত অবস্থান ও অপর একটি টহলদল নাফ নদীতে নৌ টহলরত অবস্থায় আটক করে।

আটককৃত ব্যক্তির স্বীকারোক্তিতে বিজিবি টহলদল নৌকা তল্লাশি করে নৌকার ইঞ্জিনের পার্শ্বে লুকায়িত অবস্থায় একটি পলিথিনের ব্যাগের ভিতর হতে ৮০,০০০ (আশি হাজার) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করতে সক্ষম হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে সে শাহাপরীরদ্বীপ বাজারপাড়া এলাকার কামাল হোসেনের ছেলে মোঃ এহসান (১৫) বলে জানায়। পলাতক ব্যক্তিদ্বয়ই জব্দকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটের মালিক বলে সে স্বীকার করে। পলাতক ব্যক্তিদের সনাক্তে ব্যাটালিয়নের গোয়েন্দা কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

আটককৃত এবং পলাতক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলার মাধ্যমে জব্দকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটসহ আটককৃত ব্যক্তিকে টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তথ্য নিশ্চিত করেছেন,লেঃ কর্নেল মোঃ মহিউদ্দীন আহমেদ,বিজিবিএমএস,অধিনায়ক টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি)।