ArabicBengaliEnglishHindi

রাজধানীতে সন্ধ্যার পর ছিনতাইয়ে বেপরোয়া হয়ে উঠেন তারা


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ২৮, ২০২২, ৭:৪০ অপরাহ্ণ / ১১
রাজধানীতে সন্ধ্যার পর ছিনতাইয়ে বেপরোয়া হয়ে উঠেন তারা

সেলিম রানা:- রাজধানীর শাহজাহানপুর, মতিঝিল, পল্টন, শাহবাগ ও কমলাপুর এলাকা থেকে সংঘবদ্ধ অজ্ঞানপার্টি এবং ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতাসহ ২৭ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) দিনগত রাতে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৩।

গ্রেফতাররা হলেন- রুবেল (১৯), আরমান (২১), তুহিন মোল্লা (৩৫), শামীম শেখ (২৩), শান্ত (১৯), বাবু মিয়া (৩২), সোহাগ (২৮), আরশেদ (২৫), মিলন (২৫), সাকিব (২০), সাগর (২২), বাবু হোসেন গাজী (২৬), আকাশ (২২), ইমরান (২২), সাগর (২৮), শান্ত (২২), রিফাত উদ্দিন (২৩), সুজন (২২), সুজন (২৩), ওয়াসিম আকরাম (২২), ইব্রাহিম (২২), আরিফ হোসেন (২৭), সুমন (২২), কবির হোসেন (৩৫), কামরুল হাসান (৩৮), রকি ব্যাপারী (৩২) ও সোহাগ (৩২)।

তাদের কাছ থেকে একটি সুইচ গিয়ার, আটটি চাকু, দুটি ক্ষুর, নয়টি ব্লেড, তিনটি অ্যান্টিকাটার, তিনটি বিষাক্ত মলমের কৌটা, দুটি বিষাক্ত স্প্রে, সাতটি মোবাইল, দুটি সিম, পাঁচটি মানিব্যাগ, দুটি ঘড়ি, একটি হেডফোন ও নগদ তিন হাজার টাকা জব্দ করা হয়।

শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আরিফ মহিউদ্দিন আহমেদ এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, গ্রেফতাররা রাজধানীর বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ড, রেল স্টেশন এলাকায় ঘোরাফেরা করতে থাকেন। তারপর সহজ-সরল যাত্রীদের টার্গেট করে কখনো দেশীয় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে বা বিষাক্ত চেতনানাশক ওষুধ মিশিয়ে খাওয়ানোর চেষ্টা করে। বিষাক্ত পানীয় সেবন করার বা বিষাক্ত স্প্রের ঘ্রাণ নেয়ার পর যাত্রীরা অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাদের সর্বস্ব কেড়ে নিয়ে তারা ভিড়ের মধ্যে মিশে যেতো। এসব ছিনতাইকারী সদস্যদের ভুক্তভোগীরা খুব কম ক্ষেত্রেই শনাক্ত করতে পারেন। ফলে এসব ছিনতাইকারী সদস্যরা নির্বিঘ্নে তাদের অপকর্ম চালিয়ে যেতেন।

তিনি বলেন, এছাড়া সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারীরা রাজধানীর বিভিন্ন অলিগলিতে ওত পেতে থাকে। সুযোগ পাওয়া মাত্রই তারা পথচারী, রিকশা আরোহী, যানজটে থাকা সিএনজিচালিত অটোরিকশার যাত্রীদের ধারালো অস্ত্র প্রদর্শন করে সর্বস্ব লুটে নেয়। সন্ধ্যা থেকে ভোর পর্যন্ত তুলনামূলক জনশূন্য রাস্তা, লঞ্চঘাট, বাসস্ট্যান্ড, রেল স্টেশন এলাকায় ছিনতাইকারীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেন।

লে. কর্নেল আরিফ মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ছিনতাইকাজে বাধা দিলে তারা নিরীহ পথচারীদের প্রাণঘাতী আঘাত করতে দ্বিধা বোধ করে না। ছিনতাইকারীদের আইনের আওতায় আনার ফলে পথচারীদের মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে। রাজধানীবাসী এবং দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে রাজধানীতে আসা যাত্রীরা যেন নিরাপদে দৈনন্দিন কাজকর্ম সম্পন্ন করে নির্বিঘ্নে স্বস্তির সঙ্গে বাড়ি ফিরতে পারেন এ লক্ষ্য ছিনতাইকারী চক্রের বিরুদ্ধে র‌্যাবের সাড়াশি অভিযান অব্যাহত থাকবে।

%d bloggers like this: