ArabicBengaliEnglishHindi

ময়মনসিংহে বাড়ছে রেল দুর্ঘটনা-মৃত্যু


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ১৭, ২০২২, ৬:৩২ অপরাহ্ণ / ১৫
ময়মনসিংহে বাড়ছে রেল দুর্ঘটনা-মৃত্যু

জেলা প্রতিনিধি:-   ময়মনসিংহে দিনদিন রেল দুর্ঘটনা বাড়ছে। লাইনচ্যুত, ইঞ্জিন বিকলের ঘটনা ঘটছে অহরহ। এছাড়া গত এক বছরে ট্রেনে কাটা পড়ে ৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এসব ঘটনার জন্য রেল কর্তৃপক্ষকে দায়ী করছে স্থানীয়রা।

সর্বশেষ শনিবার সকাল সোয়া ৮টার দিকে চট্টগ্রামগামী ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস নগরীর কেওয়াটখালী এলাকায় লাইনচ্যুত হয়। এতে ময়মনসিংহের সঙ্গে চট্টগ্রাম, জারিয়া ও মোহনগঞ্জের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। আড়াই ঘণ্টা চেষ্টার পর বেলা পৌনে ১১টার দিকে রেল যোগাযোগ সচল হয়।

এর আগে ১১ ডিসেম্বর সকাল ৮টার দিকে নগরীর বলাশপুর এলাকায় একই ট্রেনের একটি বগি লাইনচ্যুত হয়। ওই দিনও ট্রেন লাইনচ্যুত হওয়ায় ময়মনসিংহের সঙ্গে চট্টগ্রাম, জারিয়া ও মোহনগঞ্জের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।

একই লাইনে সপ্তাহের ব্যবধানে একই ট্রেন দুইবার লাইনচ্যুত হওয়ার ঘটনায় চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধান করে আগামী ৭ কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, কয়েকদিন পর পর ট্রেন দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ট্রেনের যাত্রী ও পথচারীরা আতঙ্কে থাকেন কখন দুর্ঘটনা ঘটে। বারবার এসব দুর্ঘটনার পরও প্রশাসন কোনো উদ্যোগ নিচ্ছে না।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে রেলওয়ের এক কর্মচারী বলেন, আজকে ট্রেনের যে বগি লাইনচ্যুত হয় গত সপ্তাহেও একই একই বগি লাইনচ্যুত হয়েছিল। এ বগির চাকাগুলো পুরাতন। যে কারণে বারবার এমন ঘটনা ঘটছে।

এ বিষয়ে রেলওয়ের ট্র্যাকম্যান সবুজ মিয়া বলেন, লাইন দেখাশোনা করা আমাদের নিয়মিত কাজ। সকালেও আমরা রেললাইন চেক করেছি। কিন্তু, কোনো সমস্যা ছিল না। দুর্ঘটনার কারণ তদন্তে কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ময়মনসিংহ রেলওয়ে লোকোশেড ইনর্চাজ আব্দুর রহিম বলেন, ট্রেন লাইনচ্যুত হওয়ার ঘটনায় চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধান করে ৭ কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) ময়মনসিংহ মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক আলী ইউসুফ বলেন, ময়মনসিংহে চলতি বছরে ৪৬ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। অরক্ষিত লেভেল ক্রসিং মেরামতের পাশাপাশি সাধারণ মানুষকেও চলাচলে সচেতন হতে হবে। রেল দুর্ঘটনায় আমরা আর কোনো মেধাবীদের হারাতে চাই না।

ময়মনসিংহ রেলওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক দীপক চন্দ্র পাল বলেন, চলতি বছরে ট্রেনে কাটা পড়ে ৪৬ জন মারা গেছে। মারা যাওয়াদের মধ্যে বেশির ভাগের মাথায় সমস্যা থাকে। এছাড়া মানুষ অসচেতন ভাবে রেললাইন পার হওয়ার সময় দুর্ঘটনা ঘটে। অনেকে কানে হেডফোন লাগিয়ে লাইন দিয়ে হাঁটার সময় দুর্ঘটনার শিকার হন।

%d bloggers like this: