ঝালমুড়ি বিক্রেতাকে হত্যা! বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ৬, ২০২২, ৬:৫৩ অপরাহ্ণ / ১০২
ঝালমুড়ি বিক্রেতাকে হত্যা! বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে

নাগরপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:- টাঙ্গাইলের নাগরপুরে মো. হাসমত আলী (৫০) নামে এক ঝালমুড়ি বিক্রেতার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার পারবাইজোড়া গ্রামের ইয়ারচান মিয়ার পরিত্যক্ত ক্ষেত থেকে তার লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত হাসমত ওই গ্রামের মৃত হায়েদ আলীর ছেলে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে। দুর্বৃত্তরা গলায় রশি পেঁচিয়ে তাকে হত্যা করে লাশ ফেলে রেখে চলে যায় বলে ধারণা করা হচ্ছে।

স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, প্রায় ৫ বছর আগে তফিজ ব্যবসার কথা বলে হাসমত আলীর কাছ থেকে সাড়ে চার লাখ টাকা ধার নেন। হাসমত টাকা চাইতে গেলে তফিজ উদ্দিন নানা টালবাহানা করে আসছিলেন। সোমবার বিকালে হাসমত আলী ফের তফিজের কাছে টাকা চাইতে যান।

এ নিয়ে হাসমত আলীর সঙ্গে তফিজের পারবাইজোড়া পাকা রাস্তার মোড়ে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে তফিজ ও রহিম বাদশা মিলে হাসমত ও তার মেয়েকে মারপিট করে। বুধবার বাজারে রহিম বাদশা আবারও হাসমত আলীর সঙ্গে কথা কাটাকাটি করেন।

বিষয়টি মীমাংসার কথা বলে রাত ৮টার দিকে কামাল হাসমতকে তার বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এর পর তিনি আর রাতে বাড়ি ফিরে আসেননি।

নিহতের স্ত্রী সোনা ভানু বলেন, বুধবার রাত ৮টার দিকে কামাল বাড়ি এসে আমার স্বামীকে ডেকে নিয়ে যায়। তিনি আর রাতে বাড়ি ফিরে আসেনি। বৃহস্পতিবার ভোরে স্থানীয় আসু মিয়ার স্ত্রী নবীয়া বেগম বাড়িতে খবর দেন হাসমত আলীর লাশ ইয়ারচান মিয়ার জমিতে পড়ে আছে। পূর্ব শত্রুতার জেরে পরিকল্পিতভাবে আমার স্বামীকে হত্যা করা হয়েছে।

নাগরপুর থানার ওসি মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে— তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।