১০ অক্টোবর সোমবার স্বপ্নের কালনা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে লোহাগড়া প্রান্তে প্রস্তুতি চলছে জোরেশোরে


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১০, ২০২২, ২:১০ অপরাহ্ণ / ১১২
১০ অক্টোবর সোমবার স্বপ্নের কালনা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে লোহাগড়া প্রান্তে প্রস্তুতি চলছে জোরেশোরে
স্টাফ রিপোর্টার মো মামুন মোল্যা :- অক্টোবর,লোহাগড়া, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আগামী ১০ অক্টোবর সোমবার নড়াইল- লোহাগড়া বাসীর স্বপ্নের কালনা মধুমতি সেতু ভার্চুয়াল মিটিং এর মাধ্যমে উদ্বোধন করবেন।
সে প্রেক্ষিতে কালনা সেতুর পশ্চিমপাড়ে লোহাগড়া প্রান্তে  সেতু উদ্বোধনের জন্য ১৫০০/২০০০ লোকের বসার স্থান করার জন্য একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করার কাজ চলছে। গত কিছু’দিন ধরেই নড়াইল জেলা প্রশাসক,পুলিশ সুপার, সওজ প্রকৌশলী,উপজেলা প্রসাশন সেতু এলাকা পরিদর্শন করেছেন। এবিষয়ে একটি প্রস্তুতি মিটিং করছেন নড়াইল জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান। গত বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে এগারোটায় এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরিবহন মালিক সমিতি ও শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আলোচন করেন এবং বলেন যানযট এড়াতে ঔ দিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত লোকাল বাস লোহাগড়া সিএন্ডবি থেকে চলবে আর ট্রাক পিকাপ সীমিত সময়ে মোল্লার মাঠে পার্কিং করে যানযট এড়াতে সহায়তা প্রদান করবে।  ঢাকা গামি পরিবহন সিমিত আকারে চলবে তবে শুধু বারটা থেকে একটা পর্যন্ত বন্ধ করতে সম্মতি দিয়েছেন।
জেলা পুলিশ সুপার এ বিষয়ে সর্বাত্মক সহায়তা প্রদান করতে ট্রাফিক পুলিশকে নির্দেশ দিয়ে সবধরনের সহায়তা করবেন।
 উক্ত বিষয়ে নড়াইল জেলা প্রশাসক জনাব হাবিবুর রহমান সকল ষ্টেকহোল্ডারদের সাথে পরামর্শ করে চলেছেন।
 তবে সেতুর নড়াইল জেলার লোহাগড়া অংশে সেতুর প্রশ্চিম র্পাশ্বে এবং একই সাথে গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে হতে কালনা সেতু উদ্বোধনী অনুষ্ঠান কার্যক্রমের আয়োজন করা হয়েছে ৬ অক্টোবর তারিখের সড়ক ও জনপথ এবং সেতু মন্ত্রণালয়ের সরকারি প্রজ্ঞাপন মোতাবেক।
নড়াইল বাসীর পক্ষ হতে  জাতির পিতা  বঙ্গবন্ধু কন্যা ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী  জননেত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন,কৃতজ্ঞতা  ও ধন্যবাদ জানিয়ে ফেসবুক টুইটারে পোস্ট চলছে চোখে পড়ার মতো।
কথা বলে জানা যায় নড়াইলবাসি আরো বেশি কৃতজ্ঞ ও  আনন্দিত হতো যদি কিনা কালনা সেতুর নামকরণটি বঙ্গবন্ধুর সাথে আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার অন্যতম আসামি, রণাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সূর্য সন্তান এবং লোহাগড়ার গর্ব ও কৃতি সন্তান মরহুম লে. এমএম মতিউর রহমান (বিএন)  এর নামে নামকরণ করা হলে আরো বেশি কৃতজ্ঞতায় আবদ্ধ হত বলে মত দেন। তারপর ও খুব খুশি যে মধুমতী নদী তার নামটি বিশ্বের বুকে আরও একবার স্থান করে নিল।
আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী  শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশ এসডিজি অর্জনে আরও একধাপ এগিয়ে যাবে।