লোহাগড়ার তালবাড়িয়া গ্রামে ৪ বছরের শিশু ধর্ষণের চেষ্টায় থানায় মামলা দায়ের


প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ২০, ২০২৩, ৭:২৯ অপরাহ্ণ / ৬০
লোহাগড়ার তালবাড়িয়া গ্রামে ৪ বছরের শিশু ধর্ষণের চেষ্টায় থানায় মামলা দায়ের
মোঃ আজিজুর বিশ্বাস,লোহাগড়া নড়াইল প্রতিনিধিঃ নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার দিঘলিয়া ইউনিয়ন তালবাড়িয়া গ্রামে ৪ বছরের এক শিশু কন্যা ধর্ষণের চেষ্টার ঘটনায় ওই শিশুর মা বাদী হয়ে লোহাগড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
সূত্রে জানা যায়, ১৮/ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৬ টার দিকে তালবাড়িয়া গ্রামের আজাদুল মোল্লা ছেলে ফাহিম মোল্লা (১৬)ওই শিশু কন্যাকে তাদের বাড়ি থেকে তার ব্যবহার কৃত মোবাইল ফোন থেকে ভিডিও দেখানোর কথা বলে শিশু কে তাদের বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়,এরপর লম্পট ফাহিম মোল্লা ঐ শিশু কন্যাকে জোর করে  ধর্ষণের চেষ্টা করে।
ওই শিশুর মা বলেন আমার মেয়ের কান্নার শব্দ শুনে ফাহিম এর ঘরের মধ্যে যেয়ে দেখি আমার মেয়ে খাটের উপরে পড়ে আছে এসময় ফাহিম আমাকে দেখে সেখান থেকে দৌড়ে পালিয়ে যায়।
উক্ত ঘটনা তাৎক্ষণিক আমি আমার স্বামীকে মোবাইল ফোনে ফোন করে জানিয়ে মেয়েকে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসি এবং মেয়েকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে নিয়ে যায়, এরপরে থানায় মামলা করতে আসতে গেলে স্থানীয় কিছু লোকজন আমাদের থানায় না আসতে দিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করে দেবে বলে জানাই,এবং ঘটনাটি কাউকে বললে বড় ধরনের ক্ষতি করবে বলে ভয়-ভীতি প্রদান করে।
এরপর আমার স্বামী বাড়িতে আসলে তাকে নিয়ে ২০ সেপ্টেম্বর বুধবার লোহাগড়া থানায় একটি লিখিত এজাহার দায়ের করি। এবং আমরা ফাহিম মোল্লার কঠিন শাস্তির দাবি করছি।
এবিষয়ে ফাহিম এর বাড়িতে গেলে তাদের   পাওয়া যায় নাই,এবং ফাহিম মোল্লা পলাতক আছে বলে জানা গেছে।
কিন্তু বেরিয়ে আসে অন্য তথ্য কয়েকজন সাংবাদিক পরিচয়কারীদের সাথে অর্থ লেনদেন কথা স্বীকার করেন ওই শিশুর চাচা হাসিবুর মোল্লা, সাহাবুর মোল্লা,আকমল মোল্লা,এবং শিশুর আপন দাদা বউফ মোল্লা,
হাসিবুর মোল্লা বলেন ১৮ তারিখ রাতে হাসপাতাল থেকে ৫/৬জন সাংবাদিক পরিচয় কারী তারা আমাদের ঘটনা জানতে পেরে আমাদের বলেন যেহেতু বিষয়টা নিজেদের আপনার মিমাংসা করে নিন,
তিনি আরও বলেন তাদের একটি অফিস রুমে নিয়ে আমাদের কাছে অর্থ দাবি করেন, এবং বলেন তাহলে আমরা মামলা হতে দিচ্ছি না আর নিউজও করবো না তাই বলে তাদের থেকে নগদ টাকা নিয়ে নেন,
টাকা লেনদেনের বিষয় টা ওই শিশুর আপন দাদা রউফ মোল্লাও শিকার করেন।
এবিষয়ে লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোঃ নাসির উদ্দীন জানান এজাহার পেয়েছি এ ঘটনায় জড়িত ফাহিম মোল্লা কে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।