মুক্তির শ্লোগান


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ১৬, ২০২৩, ২:২৭ অপরাহ্ণ / ১১৮
মুক্তির শ্লোগান

আসাদুজ্জামান খান মুকুল

আজ আমি বিস্মৃত!নির্বাক!
নরপশুদের হিংস্র তাণ্ডবে বারবার মূর্চিত হই।
আবার আমি ঘুরে দাঁড়াই অস্পৃশ্য মানবের ডাকে!
স্তব্দ হয়ে থাকতে পারি না করুণের আর্ত চিৎকারে !
আমাকে তাড়া করে ফিরে বারেবারে।

অন্তরদৃষ্টে দেখি স্বার্থের ভেড়াজালে মানুষ আজ মোহাচ্ছন্ন,
মানবিকতা নিয়েছে পাশবিকতায় রূপ।
ক্ষমতা কুক্ষিগত করার প্রয়াসে বিসর্জন দিয়েছে তার মানবিক মূল্যবোধ।
চালাচ্ছে অসহায়ের উপর নির্যাতনের খড়্গ।

পৃথিবীর আকাশে অমানিশার কালো ছায়ায় ঢেকে দিয়েছে ঈষাণ থেকে নৈর্ঋতে।
মানুষরূপী অমানুষের দল নির্বিচারে চালাচ্ছে বুলেট,নেই কেহ স্বস্তিতে।
মারণাস্ত্রে কেড়ে নিচ্ছে অগণিত মানুষের প্রাণ।
অসহায়ের রক্তে রঞ্জিত আজ ধরণীর মৃত্তিকা।
মৃত্যুপুরীতে জীবন হারাচ্ছে কত মায়ের সন্তান।

নিজের আবাস ভূমিতে নেই কারো আজ বাঁচার অধিকার।
আগ্রাসীরা একের পর এক দখল করতে চাইছে সিরিয়া,ফিলিস্তিন,কাশ্মীর।
মিয়ানমারে সামরিক জান্তা চালাচ্ছে নির্যাতনের ষ্টিম রুলার।
বুলেটের আঘাতে ক্ষত-বিক্ষত করেছে কত না মানব প্রাণ।
রক্তের লালে রঞ্জিত করে চলছে ধরণীর মাটি,প্রাণ খোলে গাইতে পারছেনা তার আনন্দের গান।

গোলাবারুদের ঝাঝালো গন্ধে রুদ্ধ প্রায় মানুষের শ্বাস।
ক্ষুধার্ত শিশুদের আর্ত চিৎকারে ভারি আজ সেখানের আকাশ বাতাস !
নর পশুরা কেড়ে নিচ্ছে কত মা-বোনের ইজ্জত,
জাতিসংঘ নীরব দর্শকের ভূমিকায়,
অসহায় মানুষেরা পাচ্ছে না মুক্তির পথ!

এই অত্যাচার মেনে নেওয়া যায় না,
অত্যাচারীর শিকল ভাঙতে বিশ্ববাসীর তুলতে হবে মানব মুক্তির শ্লোগান।
প্রতিবাদে অগ্নিশিখায় ছারখার করতে হবে মানুষ রূপী হায়েনা।
জেগে উঠো তবে মানব সন্তান !
আর দেখিবার নেই তো সময়,
দ্রোহের গ্লোগানে ধরণীর মাঝে আনতে হবে জয়!