প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিতর্কিত প্রার্থীর পক্ষে নেইমার


প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২২, ৭:২০ অপরাহ্ণ / ১২৪
প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিতর্কিত প্রার্থীর পক্ষে নেইমার

স্পোর্টস ডেস্ক :- মাঠের বাইরে উচ্চাভিলাষী ও উদ্দাম জীবনযাপনের জন্য প্রায়ই খবরের শিরোনামে পরিণত হন ব্রাজিলের তারকা ফুটবলার নেইমার জুনিয়র। এমনকি কেউ কেউ তাকে ‘ব্যাড বয়’ হিসেবেও আখ্যায়িত করে থাকেন। এবার তার নাম জড়ালো নিজ দেশের বিতর্কিত প্রেসিডেন্টের সঙ্গে।

রোববার হবে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রথম দফার ভোটগ্রহণ। যেখানে প্রেসিডেন্ট পদে লড়বেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট জেইর বোলসোনারো ও সাবেক প্রেসিডেন্ট লুইজ ইনাসিও লুলা ডা সিলভা। নির্বাচনকে ঘিরে করা একাধিক জরিপে লুইজ ইনাসিওকে এগিয়ে রাখা হচ্ছে।

কিন্তু দেশটির ফুটবল দলের মহাতারকা নেইমার প্রচারণা চালিয়েছেন বোলসোনারোর পক্ষে। প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের হয়ে খেলার জন্য বর্তমানে ফ্রান্সে অবস্থান করলেও, অবাধ ইন্টারনেটের যুগে ভিডিওর মাধ্যমে বোলসোনারোর পক্ষে নিজের সমর্থন জানিয়েছেন নেইমার।

ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম টিকটকে আপলোড করা একটি ভিডিওতে বোলসোনারোর নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যবহার হওয়া গানের সঙ্গে ঠোট মেলান নেইমার। সেই গানের কথাগুলো হলো, ‘ভোট, ভোট, নিশ্চিত করতে ২২ চাপুন, এটিই বোলসোনারোর নম্বর।’

এই ২২ নম্বর হলো নির্বাচনে বোলসোনারোর প্রার্থিতা নম্বর। ভোটিং মেশিনে ২২ নম্বরেই থাকবে বোলসোনারোরর নাম। টিকটকে নেইমার এই ভিডিও আপলোড করার কিছুক্ষণ পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজের প্রোফাইলে সেটি শেয়ার করেছেন বোলসোনারো।

এর আগে গত বুধবার সাও পাওলোতে ২০১৪ সালে নেইমারের প্রতিষ্ঠিত দাতব্য প্রতিষ্ঠান নেইমার জুনিয়র ইনস্টিটিউটে গিয়েছিলেন বোলসোনারো। তখন বোলসোনারোকে ধন্যবাদ জানিয়ে একটি ভিডিওবার্তা দিয়েছিলেন নেইমার। সেটি আবার বোলসোনারোর সমর্থকরা তুমুলভাবে ছড়িয়ে দেন।

সবমিলিয়ে আসন্ন নির্বাচনে নেইমারের অবস্থান এখন পুরোপুরি বোলসোনারোর দিকেই ঝুঁকেছে। কিন্তু ২০১৯ সাল থেকে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করা বোলসোনারোকে ঘিরে রয়েছে নানান বিতর্ক। ২০২০ সালে করোনার প্রাদুর্ভাবের সময় এটিকে সাধারণ সর্দি-কাশির সঙ্গে তুলনা করেন তিনি।

পরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনতে ভ্যাকসিন আবিষ্কার হলে বোলসোনারো বলেন, এই ভ্যাকসিন নিলে পুরুষের কণ্ঠে নারীর মতো হয়ে যাবে, নারীর কণ্ঠ হবে পুরুষের মতো। এছাড়া বাক্স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ, প্রকৃতি–পরিবেশের ক্ষতিসহ আরও অনেক অভিযোগ রয়েছে বোলসোনারোর বিরুদ্ধে।

তার বিরুদ্ধে পারিবারিকভাবে দুর্নীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে বিভিন্ন সময়ে। বছর দুয়েক আগে বোলসোনারোর বড় ছেলে ফ্লাভিও বোলসোনারোর বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ, অর্থ পাচার, তহবিলের অপব্যবহারের পাশাপাশি একটি অপরাধ সংস্থা পরিচালনার অভিযোগে মামলা হয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচকদের মন্তব্য করার পথও বন্ধ করে দিয়েছেন বোলসোনারো। প্রায়ই সংবাদমাধ্যমকে নিজের প্রতিপক্ষ হিসেবে বিবেচনা করেন তিনি। সেই বোলসোনারোকেই আবার প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেখার জন্য সমর্থন দিয়েছেন নেইমার।