পাহাড়িয়া মেয়ে আমি


প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২২, ১২:১৫ অপরাহ্ণ / ১৫৮
পাহাড়িয়া মেয়ে আমি
নীতা কবি মুখার্জী
আমি পাহাড় দেশের মেয়ে,
পাহাড়ের কোল ঘেঁষে যে  রাস্তা তার এ প্রান্ত  থেকে ও প্রান্তে ছুটে বেড়াতাম পাহাড়ী ঝরণার মতো
কখনো ছোট্ট কলসী করে পাহাড়ী নদীর জল এনে মা-কে দিতাম তার রান্নাঘরে
মা খুব খুশী হতো।
পাহাড়ের অনামী সরকারী স্কুলে পড়তে যেতাম সঙ্গী-সাথীদের সাথে
কত মজা, কত হাসি কলকল কলকল করে।
কখন যেন পৌঁছে গেলাম বয়ঃসন্ধিক্ষণে!
হাঁটতে , ছুটতে, উঠতে, বসতে শরীরে লজ্জা এলো!
কেমন যেন মন চঞ্চল করা দিন এলো।
বাবা ছিলেন টুরিস্ট লজের কর্মী,
সেই লজে গ্ৰীষ্মের ছুটি কাটাতে এলে তুমি।
দেখলে আমায়, প্রথমে রাগারাগি, পরে চাওয়া-চাওয়ি, নয়নে নয়ন
হাতে হাত।
হঠাৎ একদিন বুকের কাছে হ‍্যাঁচকা টেনে নিয়ে তুমি বললে–এ্যই বিয়ে করবে আমায়, আমি ভালোবেসে ফেলেছি তোমায়।
চলো, শহরে নিয়ে যাবো তোমায়
ঘর বাঁধবো, সুন্দর সংসার হবে তোমার আমার।
বিশ্বাস করেছিলাম, কথা দিয়েছিলাম সেই শহুরে বাবুকে, লুকিয়ে মন্দিরে গিয়ে বিয়ে, সিঁদুর পরা, দৈহিক মিলন সবই হয়ে গেল।
হঠাৎ একদিন সন্ধ্যায় তুমি বললে জরুরী কাজে শহরে যাচ্ছি, কয়েকদিন পরে এসে তোমায় নিয়ে যাবো
পথ চেয়ে বসে আছি, সেই কয়েকদিন পরটা আর আসেনি।শবরীর প্রতিক্ষা চলছে, শেষ হয়নি, আর হবেও না এ জীবনে।
লেখা