ArabicBengaliEnglishHindi

দেবীগঞ্জ উপজেলা ভুমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ট্রাক্টরের ড্রাইভারকে মারধরের অভিযোগ মোমিন ইসলাম সরকার পঞ্চগড় প্রতিনিধি


প্রকাশের সময় : আগস্ট ২২, ২০২২, ২:১৫ অপরাহ্ণ / ৬৩
দেবীগঞ্জ উপজেলা ভুমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ট্রাক্টরের ড্রাইভারকে মারধরের অভিযোগ মোমিন ইসলাম সরকার পঞ্চগড় প্রতিনিধি

পঞ্চগড়ের দেবিগঞ্জ  প্রিতিনিধি : পঞ্চগড়ের দেবিগঞ্জ উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা গোলাম রব্বানী সরদার এর বিরুদ্ধে একজন শ্রমিক ট্রলির ড্রাইভারকে মারধরের অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী । এ বিষয়ে ভুক্তভোগী মোঃ মশিউর রহমান জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন । অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন আমি একজন মহেন্দ্র গাড়িচালক । প্রতিদিনের ন্যায় (১৯-আগস্ট) দুপুর ১২ টার সময় ময়নামতি চরে বালু পরিবহন করতে যাই।

 

মোঃ জাকির হোসেন নামের এক ব্যক্তি তিনটি ট্রলির ড্রাইভার এর কাছে ১৫০০ টাকা দাবি করেন । আমরা টাকা না দিয়ে তাকে বলি বৈধ বালু নিচ্ছি । টাকা না দেওয়ার কারণে জাকির হোসেন আমাদের তিনটি গাড়ি’র চাবি কেড়ে নেন এবং বলেন ছাড় না আসা পর্যন্ত গাড়ির চাবি দিব না । ইতিমধ্যে এসিল্যান্ড সাহেব ময়নামতি চরের বালু পয়েন্টে আসেন । এবং আমাকে জিজ্ঞাসা করেন তোমরা কেন গাড়ি নিয়ে এখানে এসেছ ।

 

প্রতিউত্তরে আমরা বলি এখানে ভাড়া মারতে এসেছি । উক্ত কথা বলার সাথে সাথে এসিল্যান্ড সাহেব আমাকে এলোপাতাড়ি চড় থাপ্পর মারিতে থাকে । এমন কার্যকলাপের কথা জিজ্ঞাস করিলে উনি বলে তোমার বালুর ভাড়ার স্বাধ মিটাইয়া দিব । পরবর্তীতে অদ্য (২২-আগস্ট) সকালে দেবীগঞ্জ উপজেলার ট্রাক্টর চালক , পরিবহন শ্রমিক সদস্য ও সংগঠনের নেতা কর্মীরা উপজেলা পরিষদ চত্বরে অবস্থান গ্রহণ করেন । এ সময় শ্রমিক নেতারা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে শ্রমিক মারধরের ঘটনা নিয়ে আলোচনা করেন ।

 

পরে বাইরে বের হয়ে শ্রমিক নেতা আশিকুর রহমান পাপ্পু গণমাধ্যম কর্মীদের জানান, গত ১৯-আগস্ট ময়নামতির চরে নির্ধারিত স্থানে বালি উত্তোলন করার সময় সেখানে এসিল্যান্ড যান । সেখানে আমাদের শ্রমিক ভুল করে তাকে একটা কথা বলে ।পরবর্তীতে এসিল্যন্ড শ্রমিক মশিউর রহমানের গায়ে হাত দেয় । তিনি থানা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের কাছে ফোন দেয় । সেসব জায়গা থেকে আমার কাছে ফোন আসলে আমি সবাইকে অবহিত করি যে আমার শ্রমিকের গায়ে হাত দেওয়া হয়েছে বিষয়টা নিয়ে এসিল্যান্ডের সাথে কথা হচ্ছে । পরে এসিল্যান্ড রাত্রে আমাকে দেখা করতে বললে আমি রাত্রে তাকে ফোন দেই । কিন্তু তিনি ফোন রিসিভ করেননি। যেহেতু আমরা কোন সমাধান পাইনি তাই আজকে শ্রমিকরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে এসেছে ।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে এ বিষয়ে কথা বলেছি । তিনি আমাদের সামনে ভুল স্বীকার করেছেন । ভবিষ্যতে আর এ ধরনের ভুল হবেনা মর্মে আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন । উপজেলা নির্বাহী অফিসারের এই কথায় আমরা সন্তুষ্ট । এ বিষয়ে দেবীগঞ্জ উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা গোলাম রব্বানী সরদার এর সাথে কথা বললে, তিনি বলেন তারা নির্ধারিত সীমানার বাইরে থেকে বালি উত্তোলন করতেছিল । আমরা তাদেরকে নিষেধ করেছি । আমি এই উপজেলায় দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে যতগুলো ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেছি সবগুলোতে সর্বনিম্ন ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছি । জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে বালুমহাল লিজ দেওয়ার সময় উল্লেখ করা হয়েছে রাস্তা ও ব্রিজ থেকে এক কিলোমিটারের মধ্যে কেউ বালি উত্তোলন করতে পারবে না ।

 

তারা দীর্ঘদিন ধরে নির্ধারিত সীমানার বাইরে থেকে বালি উত্তোলন করে আসছে । আমরা পতাকা দিয়ে সীমানা নির্ধারণ করে দিয়েছি । এ সময় আমার সাথে পুলিশ ও অফিসের লোকজন ছিল । আমি তো মুখ দিয়ে বললে তাদের পিটায়ে পানি খাওয়াবে । এ বিষয়ে দেবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার গোলাম ফেরদৌস বলেন, আমরা নিয়মিত ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করছি । আমরা গেলে তারা আমাদের লোকজন ও অফিসারের সাথে খারাপ আচরণ করে । তারপরেও এসিল্যন্ড এর কাজটি পজিটিভ হয় নি । ভবিষ্যতে যেন এ ধরনের ঘটনা না ঘটে সে বিষয়ে বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে ।