দুই জলদস্যু বাহিনীর গোলাগুলিতে নিহত ২ হাতিয়ায়


প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২, ৭:৩৮ অপরাহ্ণ / ৯৯
দুই জলদস্যু বাহিনীর গোলাগুলিতে নিহত ২ হাতিয়ায়

জেলা প্রতিনিধি:- নোয়াখালী: নোয়াখালীর হাতিয়ায় মেঘনার ঘাসিয়ারচর এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করা নিয়ে জলদস্যু ফোকরা ও ফখরুল বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় দুই পক্ষের গোলাগুলিতে দুই দস্যু মারা গেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার ভোররাত তিনটা থেকে সকাল নয়টা পর্যন্ত গোলাগুলি ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, নিহত ব্যক্তিরা হলেন ঘাসিয়ারচরের ফখরুল বাহিনীর সদস্য মো. কবির ও মো. শাহরাজ। তাঁদের বাড়ি ঘাসিয়ারচরে। তবে কোস্টগার্ডের হাতিয়া স্টেশনের মিডিয়া কর্মকর্তা শফিউল কিঞ্জল বলেন, দুই পক্ষের গোলাগুলিতে দুজন নিহত হওয়ার কথা স্থানীয় সূত্রের কাছ থেকে তাঁরা শুনলেও ঘটনাস্থলে গিয়ে কারও মৃতদেহ পাননি।

কোস্টগার্ডের তিনটি দল যৌথ অভিযান পরিচালনা করে। পালিয়ে যাওয়ার সময় অস্ত্রসহ পাঁচজন জলদস্যুকে আটক করেছে কোস্টগার্ড। এ সময় তাঁদের কাছ থেকে তিনটি একনলা বন্দুক, দুটি গুলিসহ বেশ কিছু ধারালো অস্ত্রশস্ত্র ও রড উদ্ধার করা হয়েছে।

আটক জলদস্যুরা হলেন সুবর্ণচরের আটকপালিয়ার মো. জিন্টু (৩৬), লক্ষ্মীপুরের আলেকজান্ডারের চরের আবদুল্যাহর মো. হারুন (৩৭), রামগতির চরগাজীর মো. লিটন (৩৫), কমলনগরের চর কালিনীর মো. মোশারফ (৩৬) ও আলেকজান্ডারের মো. আজিম ব্যাপারী (২৭)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে ঘাসিয়ারচরে আধিপত্য বিস্তার করে আসছে খোকন ডাকাতের বাহিনী। কিছুদিন আগে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে ধরা পড়েন খোকন। তখন চরের নিয়ন্ত্রণ চলে যায় আরেক জলদস্যু ফখরুল ইসলামের হাতে। সম্প্রতি খোকন জামিনে বেরিয়ে এসে পুনরায় চরের নিয়ন্ত্রণ নিতে চাইলে ফখরুলের লোকজনের সঙ্গে বিরোধ দেখা দেয়। ওই বিরোধের জেরে গতকাল দিবাগত রাত তিনটার দিকে দুই পক্ষ গোলাগুলি শুরু করে। এতে ফখরুল বাহিনীর দুই সদস্য খোকন বাহিনীর গুলিতে নিহত হন। আরও কয়েকজন আহত হন। তাঁদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে শফিউল কিঞ্জল বলেন, স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে গোলাগুলিতে দুজন নিহত হওয়ার কথা তাঁরা শুনেছেন। তবে তাঁরা ঘটনাস্থলে গিয়ে কারও লাশ পাননি। মারা গেলেও হয়তো লাশ সরিয়ে ফেলা হয়েছে। বিষয়টি সম্পর্কে আরও খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।