ArabicBengaliEnglishHindi

থার্টি ফার্স্টে উন্মুক্ত স্থানে আয়োজন নয়, আতশবাজি-ফানুস নিষিদ্ধ


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ৩১, ২০২২, ৫:১৭ অপরাহ্ণ / ১১
থার্টি ফার্স্টে উন্মুক্ত স্থানে আয়োজন নয়, আতশবাজি-ফানুস নিষিদ্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক:- ঢাকা: ইংরেজি নতুন বছর বরণ উপলক্ষে থার্টি ফার্স্ট উদযাপনে উন্মুক্ত স্থানে কোনো আয়োজন করা যাবে না। থার্টি ফার্স্টে আতশবাজি ও পটকা নিষিদ্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক।

শনিবার (৩১ ডিসেম্বর) ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে থার্টি ফার্স্ট নাইট উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, থার্টি ফার্স্ট উপলক্ষে ঢাকাজুড়ে পোশাকে ও সাদা পোশাকে পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ নিয়োজিত থাকবে। আমরা বিভিন্ন সড়কে চেকপোস্ট স্থাপন করে যতোটা সম্ভব তল্লাশি করবো। যাতে এ উপলক্ষে কোনো জঙ্গিগোষ্ঠী নাশকতা চালাতে না পারে।

যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় ডিএমপির সোয়াত, ডগ স্কোয়াড ও বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট প্রস্তুত থাকবে বলেও জানান তিনি।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, থার্টি ফার্স্টে উন্মুক্ত স্থানে কোনো আয়োজন করা যাবে না। কোথাও কোনো ডিজে পার্টি হবে না। কোথাও আতশবাজি-পটকা ফুটানো যাবে না, ফানুস ওড়ানো যাবে না। আপনারা জানেন ঢাকা অত্যন্ত ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা। তাই অনুরোধ করছি যাতে কেউ ফানুস না উড়ায়। ফানুস উড়ালে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শনিবার (৩১ ডিসেম্বর) থেকে রোববার (১ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত কোনো বার খোলা রাখা যাবে না। ১ জানুয়ারি সকাল ১০টা পর্যন্ত আবাসিক হোটেলে লাইসেন্সকৃত আগ্নেয়াস্ত্রও বহন করা যাবে না।

তিনি বলেন, গুলশান-বনানী-বারিধারা এলাকায় রাত ৮টা থেকে বহিরাগতদের প্রবেশ নিষিদ্ধ। রাত ৮টার পর থেকে ওই এলাকায় প্রবেশ নিয়ন্ত্রণ করা হবে। ওই এলাকায় প্রবেশের জন্য আমতলি ক্রসিং-কাকলি ক্রসিং খোলা থাকবে। সেখানকার বসবাসরত নাগরিকদের রাত ৮টার মধ্যে নিজ নিজ এলাকায় প্রবেশের অনুরোধ জানাচ্ছি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) এলাকায় সন্ধ্যা ৬টার পর বহিরাগতদের প্রবেশ নিষেধ থাকবে জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক বলেন, ৬টার পর ওই এলাকায় কোনো বহিরাগতরা এবং যানবাহন প্রবেশ করতে পারবে না। প্রয়োজনে পরিচয়পত্র প্রদর্শন সাপেক্ষে নীলক্ষেত-শাহবাগ এলাকা দিয়ে প্রবেশ করতে পারবে।

১ জানুয়ারি ভোর ৫টা পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় শিক্ষক-কর্মচারীদের স্টিকারযুক্ত গাড়ি নীলক্ষেত, দোয়েল চত্বর, জগন্নাথ হলের পাশ দিয়ে প্রবেশ করতে পারবে।

ডিএমপি কমিশনার আরও বলেন, থার্টি ফার্স্ট উপলক্ষে নগরের বিভিন্ন পয়েন্টে ফায়ার সার্ভিস, অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত থাকবে। হাতিরঝিল এলাকায় ডুবুরি মোতায়েন থাকবে। তবে সন্ধ্যার পরে হাতিরঝিলে কোনো গাড়ি প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

উচ্চ শব্দে হর্ন বাজানো, দ্রুতগতিতে জয়রাইড বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মাতাল অবস্থায় কোনো চালক যাতে গাড়ি চালাতে না পারে সন্দেহজনকদের ব্রিথিং টেস্টের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যে কোনো প্রয়োজনে নগরবাসীকে পুলিশকে ফোন করার অনুরোধ জানান ডিএমপি কমিশনার।

থার্টি ফার্স্টে জঙ্গি হামলার থ্রেট রয়েছে কিনা জানতে চাইলে ডিএমপি কমিশনার বলেন, সম্প্রতি দুইজন জঙ্গি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে আমাদের অভিযান চলছে, জঙ্গি সদস্যও ধরা পড়ছে। তবে থার্টি ফার্স্টে স্পেসিফিক কোনো থ্রেট নেই।

%d bloggers like this: