জাহাজের ধাক্কায় ভেঙে পড়েছে সেতু, ৬০০ জনের মৃত্যুর শঙ্কা


প্রকাশের সময় : মার্চ ২৭, ২০২৪, ১০:৪১ পূর্বাহ্ণ / ৪৩
জাহাজের ধাক্কায় ভেঙে পড়েছে সেতু, ৬০০ জনের মৃত্যুর শঙ্কা

আইনের চোখ আন্তর্জাতিক ডেক্সঃ যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ডের বাল্টিমোর শহরে ফ্রান্সিস স্কট কি সেতুতে একটি কন্টেইনার জাহাজের ধাক্কায় এখন পর্যন্ত ছয়শত জনের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) রাত দেড়টার দিকে একটি জাহাজ সেতুর একটি পিলারে ধাক্কা দিলে এই ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটে। কোস্ট গার্ড জানিয়েছে, জাহাজটি  ধাক্কা মারার সঙ্গে সঙ্গে সেতুর  বিভিন্ন স্থানে আগুন লেগে যায়। পাশাপাশি জাহাজের ইঞ্জিন কভারে ধোঁয়া দেখা গেছে।
কোস্ট গার্ড তল্লাশি অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

সূত্রঃ খবর বিবিসির।

ভেঙে পড়ার সময় বেশ কয়েকটি যানবাহন সেতুটি অতিক্রম করছিল। সেতুটি ২ দশমিক ৬ কিমি (১ দশমিক ৬ মাইল) দীর্ঘ। কনটেইনার জাহাজটি এর একটি পিলারে ধাক্কা মারলে এটি ভেঙে পড়ে।

এলএসইজি এর শিপ ট্রেকিং ডেটা অনুযায়ী, ফ্রান্সিস স্কট কি ব্রিজের যে অংশ ধসে পড়েছে সেখানে ঘটনার সময় সিঙ্গাপুরের পতাকাবাহী কন্টেইনার জাহাজ ‘দ্য ডালি’ ছিল।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, জাহাজটি বৈদ্যুতিক ত্রুটিজনিত সমস্যায় ভুগছিল এবং দুর্ঘটনার কিছুক্ষণ আগে এটি সাহায্যের জন্য কল করেছিল। নৌকা এবং হেলিকপ্টার দিয়ে নিখোঁজদের সন্ধানে বড় ধরনের অনুসন্ধান ও উদ্ধার প্রচেষ্টা চালানো হয়। দুর্ঘটনার পর দুজনকে পানি থেকে উদ্ধার করা হয় যাদের মধ্যে একজনের অবস্থা বেশ গুরুতর।

ইউএস কোস্ট গার্ডের রিয়ার অ্যাডমিরাল শ্যানন গিলরথ এক বিবৃতিতে বলেন, দুর্ঘটনায় নিখোঁজ ব্যক্তিদের এখনও খোঁজ পাওয়া যায়নি। সেখানকার পানির তাপমাত্রা এবং তারা যতক্ষণ ধরে নিখোঁজ রয়েছেন তার ওপর ভিত্তি করে তাদের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

দুর্ঘটনার পর বাল্টিমোর দমকল বিভাগ, ইউএস কোস্টগার্ড এবং মেরিল্যান্ডের আরও বেশ কিছু সংস্থা উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়।

বাল্টিমোরের মেয়র ব্র্যান্ডন স্কট এই ঘটনাটি একটি ‘ভয়াবহ ট্র্যাজেডি’ হিসাবে বর্ণনা করেছেন। তিনি বলেন, এখন সেখানকার লোকজন, তাদের জীবন এবং যারা পানিতে পড়ে নিখোঁজ হয়েছেন আমরা তাদের খুঁজে বের করার ওপর গুরুত্ব দিচ্ছি। এখন এটাই একমাত্র বিষয় যেটা নিয়ে আমাদের কথা বলা উচিত।