কল্যাণ পরিদর্শিকা প্রশিক্ষণার্থী মনোনয়নের চূড়ান্ত ফল দ্রুত প্রকাশের দাবিতে মানববন্ধন 


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ৯, ২০২৩, ১০:২২ পূর্বাহ্ণ / ১১৪
কল্যাণ পরিদর্শিকা প্রশিক্ষণার্থী মনোনয়নের চূড়ান্ত ফল দ্রুত প্রকাশের দাবিতে মানববন্ধন 
স্টাফ রিপোর্টার জুয়েল রানা 
পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের অধীনে ‘পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা প্রশিক্ষণার্থী মনোনয়নের চূড়ান্ত ফল দ্রুত প্রকাশের দাবিতে মানববন্ধন করে।  ৮ (অক্টোবর) সকাল দশটায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে  পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা প্রশিক্ষণার্থী মনোনয়নের চূড়ান্ত ফল দ্রুত প্রকাশের দাবিতে মানববন্ধন করে।
তারা বলে বর্তমান প্রশাসন আপনাদের মাধ্যমে বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় বড় যেসব নিয়োগ পরীক্ষা অত্যন্ত স্বচ্ছতার সহিত সম্পন্ন হয়েছে তন্মধ্যে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের অধীনে ‘পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা পদে প্রশিক্ষণার্থী মনোনয়নের পরীক্ষা একটি। পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা প্রশিক্ষণার্থী মনোনয়নের চূড়ান্ত ফল প্রত্যাশীদের (৭৬২১) জন প্রার্থীদের পক্ষ থেকে আপনার প্রতি রইলো প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও সশ্রদ্ধ সালাম। আপনার অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরাধীন “পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা” প্রশিক্ষণার্থী মনোনয়নের সার্কুলার প্রকাশিত হয় ২০২০ সালে। অনলাইনে আবেদন শুরু হয় ১৬ মার্চ ২০২০ খ্রিস্টাব্দ এবং শেষ হয় ২০ এপ্রিল ২০২০ খ্রিস্টাব্দ তারিখে। সারাদেশ ব্যাপী এক যোগে লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ তারিখে। লিখিত পরীক্ষায় ৭৬২১ জন প্রার্থী উত্তীর্ণ হয় মৌখিক পরীক্ষার জন্য এবং ২৫ মে ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ তারিখ হইতে ১৮ জুন ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ তারিখ পর্যন্ত মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় এই যে, মৌখিক পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৩ (তিন) মাস অতিবাহিত হলেও চূড়ান্ত ফলাফল এখনো প্রকাশিত হয়নি।
এমতাবস্থায়, ৭৬২১ জন প্রার্থী চূড়ান্ত ফলাফলের জন্য অপেক্ষমান, যাদের অধিকাংশই বিবাহিত। উল্লেখ্য যে, ‘পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা প্রশিক্ষণার্থী মনোনয়নে চূড়ান্তভাবে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের দেড় বছরের প্রশিক্ষণের সময় অধিদপ্তর কর্তৃক শর্ত প্রদান করা হয়েছে যে, প্রশিক্ষণ চলাকালীন কোনো প্রার্থী গর্ভাবস্থা কিংবা ৩ (তিন) বছর বয়সের কম কোনো ছোটো বাচ্চা থাকা যাবে না । তাঁদের এহেন শর্তাজালে আটকা পড়ে আছে অধিকাংশ নারীর মাতৃত্ব। চূড়ান্ত ফল প্রকাশে দীর্ঘসূত্রিতা এবং ফল প্রত্যাশীরা শুধুমাত্র নারী হওয়ায় অধিকাংশ নারীর সংসারে নানাবিধ সমস্যা দেখা দিচ্ছে। যেমনঃ পরিবার পরিকল্পনাতে বিঘ্ন ঘটা, মা-বাবা হওয়া থেকে বিরত থাকতে হচ্ছে অনেককে, দুশ্চিন্তায় অনেকে স্বাভাবিক প্রাত্যহিক জীবনযাপন করতে পারছে না এবং নারীদের বয়স বেড়ে যাচ্ছে ফলে আরো নতুন নতুন সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে।
এমতাবস্থায়, আমরা কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তের ব্যাপারে আপনার সদয় দৃষ্টি কামনা করছি। যাতে কৃতপক্ষ উক্ত ফলাফল খুব দ্রুত ও অল্প সময়ের মধ্যে প্রকাশ করে ৭৬২১ জন চূড়ান্ত ফল প্রত্যাশী প্রার্থী ও তাঁদের পরিবারকে তীব্র উৎকণ্ঠা ও মানসিক যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দান করে।
সর্বশেষ আপনার প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে শেষ করছি।